fbpx
हमसे जुड़ें

ব্যর্থতা থেকে সাফল্যের দিকে

अन्य भाषाएँ

ব্যর্থতা থেকে সাফল্যের দিকে

আপনি কি আপনার জীবনের লক্ষ্যকে খুঁজছেন? এটা কোনো ভাগ্যের বিষয় নয় কিন্তু লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য একটা সঠিক পথ বেছে নেওয়া অত্যন্ত জরুরী। আপনি কি বারংবার ব্যর্থ হন? হতে পারে আপনি হয়ত সঠিক পথ বেছে নিচ্ছেন না? আসুন, সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে কিছু টিপস্‌ আমরা লক্ষ্য করি!

লক্ষ্য হাসিল করা তার ভাগ্যের বিষয় ছিল না, জানা গেল কি সে সঠিক পথ খুঁজছিলেন এবং প্রত্যেক দিন সে সেই পথেই চলত”।

এটা কতটা স্পষ্ট ও খাঁটি কথা যে একটা সঠিক পথ বেছে নেওয়া এবং সেই পথেই চলা একজন ব্যক্তিকে তার লক্ষ্য পর্যন্ত নিয়ে যায়। লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য পথ ত অনেক আছে; কোন পথকে ধরবো এবং কোন পথকে ছাড়বো? কাকে প্রাধান্য দেবো? কীভাবে সিদ্ধান্ত নেবো? 

সঠিক পথ কোনটি? কীভাবে একটি সঠিক পথকে বেছে নিতে পারি?

हमसे chat करें

একটা সঠিক পথ কোনটি?

পথ যা আপনাকে আপনার লক্ষ্য পর্যন্ত নিয়ে যায়? পথ যা আপনাকে সাফল্যের চূড়াতে পৌঁছে দেয়, পথ যা আপনাকে আনন্দ পর্যন্ত পৌঁছে দেয়, যা আপনাকে প্রত্যেক দিন শেখায় এবং একজন সফল ব্যক্তির সাথে সাথে আপনাকে একজন উত্তম ব্যক্তিতে পরিণত করে। এটাই একটা সঠিক পথ। 

এমন কোনো মানুষ আছে যে খুশি চায় না? তার লক্ষ্য পর্যন্ত পৌঁছাতে চায় না? সবাই সফল হতে চায়! কিন্তু বেশীরভাগ সময়ে সেই মানুষেরাই তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে যাদের জীবনে কোনো লক্ষ্য আছে, যার জীবনে কোনো উদ্দেশ্য রয়েছে এবং একটা “লক্ষ্য”ই একটা “সঠিক পথের” জন্ম দিয়ে থাকে, এবং অবশেষে আপনাকে আপনার গন্তব্য পর্যন্ত পৌঁছে দেয়। 

এই কথাটিকে পড়ার পর ১ মিনিটের জন্য আপনার চোখ বন্ধ করুন এবং নিজেকে জিজ্ঞাসা করুন যে আপনার লক্ষ্য কী? আপনি আপনার জীবনে কী করতে চান? কী হতে চান? এবং আপনি যদি আপনার জীবনের লক্ষ্যকে না জানেন, তাহলে এটা স্পষ্ট যে আপনার জীবনের কোনো পথ নেই, কোনো উদ্দেশ্য নেই, কোনো দিকনির্দেশ নেই।   

যদি সত্যি আপনার মধ্যে কোনো স্বপ্ন থাকে:

  • তাহলে সেই স্বপ্নগুলিকে আপনার জীবনের লক্ষ্য করে তুলুন। 
  • এবং যখন আপনি আপনার লক্ষ্যকে বেছে নিয়েছেন, তখন চিন্তাভাবনা করুন যে এই লক্ষ্যকে পূর্ণ করতে গেলে আমাকে কী করতে হবে? 
  • একটা তালিকা তৈরি করুন এবং সেখানে সেই বিষয়গুলিকে ও কাজগুলিকে লিখুন যেগুলিকে প্রাধান্য দেওয়ার দ্বারা আপনি আপনার লক্ষ্যকে পূর্ণ করতে পারবেন। 
  • এই প্রাধান্যগুলিকে প্রতিদিন করতে থাকুন যাতে সেইগুলি আপনার অভ্যাসে পরিণত হয়, কারণ এই প্রাধান্যগুলিই হল সেই পথ যা আপনাকে আপনার গন্তব্য, আপনার লক্ষ্য পর্যন্ত পৌঁছাতে সাহায্য করবে। 

 যদি মানুষের জীবনের দিকে লক্ষ্য করি, তাহলে দেখবো যে মানুষের বয়স অনুযায়ী তাদের লক্ষ্য, তাদের প্রাথমিকতা, তাদের পতগুলি আলাদা, যেমন যদি একজন স্কুলের ছাত্রের প্রাথমিকতা যদি পড়াশোনা হয়, ভাল নম্বর লাভ করা হয়, তাহলে একজন যুবকের প্রাধান্য হবে নিজের পেশাতে সফল হওয়া, একটা ভাল চাকরী হাসিল করা এবং এই দুজন যদি তাদের লক্ষ্যের পথ থেকে সরে যায়, তাহলে কখনই তার লক্ষ্যে সফল হতে পারবে না। একটা লক্ষ্য ও সেই লক্ষ্যে চলার গুরুত্ব কতটা জরুরী, সেটা আমরা সেই মানুষের থেকে ভাল ভাবে জানতে পারব যে সঠিক সময়ে নিজের জীবনের লক্ষ্যকে, সেই পথে চলাকে প্রাধান্য দেয়নি এবং সঠিক সময় পার হয়ে যাওয়ার পর এখন তার কাছে আফসোস করা ছাড়া আর কিছুই নেই। 

সঠিক পথ – “ব্যর্থতা থেকে সাফল্যের দিকে”

আপনার গন্তব্যের পথে চলতে চলতে যদি অসফল হয়ে যান তাহলে হার মানবেন না, নিরাশ হবেন না, সাহস রাখুন! আপনার পথকে ধরে থাকুন এবং সেই পথে চলতে থাকুন, কারণ অসফল হওয়া সত্ত্বেও যদি আপনি আপনার লক্ষ্যের পথে চলতে থাকেন, তাহলে কেউ আপনাকে সফল হওয়া থেকে আটকাতে পারবে না। এই কারণে ধৈর্য রাখুন এবং আপনার লক্ষ্যের দিকে দেখতে দেখতে আপনার পথে চলতে থাকুন। 

আপনার গন্তব্যের পথে চলতে চলতে যদি নিরাশার সম্মুখীন হতে হয়, প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়, বিভ্রান্তির মুখে পড়তে হয়, তাহলে “ঘাবড়াবেন না”, আপনার কনফিডেন্সকে কমতে দেবেন না। এই প্রকারের প্রশ্ন আপনার মনের মধ্যে আসা অত্যন্ত সাধারণ একটা বিষয়। 

এই কারণে আপনি প্রতিদিন আপনার মনকে আপনার লক্ষ্যের দিকে কেন্দ্রভুত করার জন্য উৎসাহিত করুন, আপনার পরিবারের লোকেদের থেকে প্রোৎসাহিত হন, নিজেকে সেই সকল মানুষদের মধ্যে রাখুন যারা আপনাকে আপনার লক্ষ্যে চলার জন্য উৎসাহিত করবে এবং আপনার লক্ষ্যকে অর্জন করার পথে চলতে থাকুন, নিজের উপর বিশ্বাস রাখুন যে আপনি এই লক্ষ্যকে পূর্ণ করতে পারবেন, কারণ আপনি যদি গন্তব্যের পথে চলতে থাকেন, তাহলে সেই দিন দূরে নেই, যেদিন আপনি সাফল্যের স্বাদ গ্রহণ করতে পারবেন। 

हमसे chat करें
To Top