fbpx
हमसे जुड़ें

আমি কিভাবে স্বর্গ পেতে পারি?

Pyaar

আমি কিভাবে স্বর্গ পেতে পারি?

স্বর্গ কেমন হয়? কিভাবে স্বর্গে যেতে পারবো? যখনই কোনও ভাল ব্যক্তি মারা যায়, আমরা বলি যে এই ব্যক্তি অবশ্যই স্বর্গে যাবে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে এটি পড়ুন।

কে স্বর্গে যাবে?

সুরেশের পরিবার একটি ধর্মীয় সমাবেশে যোগ দেয়। গুরু প্রশ্ন করলেন; যারা স্বর্গে যেতে চায় তারা হাত ওঠাও।

সুরেশের স্ত্রী এবং তার মা দ্রুত তাদের হাত ওঠালেন। গুরু সুরেশকে জিজ্ঞাসা করলেন, “তুমি স্বর্গে যেতে চাও না?” সুরেশ এই শুনে হেসে বললেন -গুরুজি, এই দুজন চলে গেলে এখানে স্বর্গ হবে!

হ্যাঁ বন্ধুরা, প্রত্যেকে নিজের নিজের স্বর্গের হিসাব করে রেখেছেন। যদি কাউকে প্রশ্ন করা হয় সে স্বর্গে যেতে চায় কিনা তবে অনেকের উত্তর এটাই; আমি আশা করি, সম্ভবত, বা আমি চেষ্টা করছি! 

हमसे chat करें

কিছু সংসারে বিচার যা আমি পড়েছি এবং শুনেছি তা হ’ল :-

১. ভাল কাজ করে কেউ স্বর্গ লাভ করতে পারে না আমিও না – এক মহান নবী 
২. জাহান্নামের তিনটি দরজা হ’ল কাম, ক্রোধ এবং লোভ। প্রতিটি বুদ্ধিমান ব্যক্তির উচিত এই তিনটি জিনিস ত্যাগ করা উচিত যদি সে তার আত্মার ক্ষতি করতে না চায় – ধর্মীয় গুরু
৩. স্বর্গ এবং নরক এক  সমান, মৃত্যুর পরে আপনার শরীর মাটি হয়ে যায়; তবে আত্মায় আপনি স্বপ্নে থাকেন। সেখানে কিছু পরিস্থিতি থাকবে, ভালও হতে পারে খারাপও হতে পারে। এটি আপনার উপর নির্ভর করে যে আপনি কত দ্রুত সেই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন, এবং একটি ভিন্ন রূপে জন্মগ্রহণ করেন, এবং এই চক্র চলতে থাকে ততক্ষণ যতক্ষণ না আপনি খুশি হন!

আমাদের চারপাশে, বই এবং ইন্টারনেটে আমাদের কাছে স্বর্গ ও নরক সম্পর্কিত প্রচুর তথ্য পাওয়া যায়।

আসুন বাইবেলের কিছু সত্য আমরা জেনে নি:-

  •  স্বর্গ কেমন হয়?
    কাশ্মীর ভারতের একটি সুন্দর জায়গা (আপনি দেখেছেন বা না দেখে থাকেন) ঠিক তেমনই বাইবেল অনুসারে স্বর্গ একটি অনন্য স্থান। স্বর্গ ঈশ্বরের বাসস্থান।
  •  স্বর্গ কি?
    বাইবেল অনুসারে, স্বর্গ ঈশ্বরের জায়গা যেখানে ঈশ্বর থাকেন এবং খুব সুন্দর। সোনার রাস্তাগ, সেখানকার দরজাগুলি সুন্দর এবং মূল্যবান মুক্তো দিয়ে খচিত হয়েছে।। অশ্রু থাকবে না না কোনও দু:খ থাকবে।
           (জাহান্নাম আগুনের জ্বলন্ত হ্রদ। অশ্রুসজল, যে আগুন কখনও শেষ হয় না, চিরন্তন শাস্তির স্থান)
  • কিভাবে স্বর্গে যেতে হবে?
  • যীশু খ্রিস্ট দ্বারা! যীশু খ্রিস্ট নিজেই স্বয়ং ঈশ্বর, এই পৃথিবীতে এসেছিলেন, ক্রুশে প্রান দিলেন, তিন দিন পরে পুনরুত্থিত হলেন এবং চল্লিশ দিন পরে দরিদ্র ৫00 জন সাক্ষীর সামনে স্বর্গে গেল।

এটা কি ন্যায্য নয়:

ঈশ্বর যিনি স্বর্গ সৃষ্টি করেছেন।
ঈশ্বর যিনি স্বর্গে বিরাজমান ছিলেন।
 যিনি স্বর্গ থেকে পৃথিবীতে এসেছিলেন।
  যিনি স্বর্গে যাওয়ার পথ তৈরি করেছেন।
 যিনি আমাদের চোখের সামনে স্বর্গে ফিরে গেলেন।
  যিনি স্বর্গে আমাদের জন্য  জায়গা তৈরি করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।
  যে স্হানে উনি বসবাস করেন সে স্হানে আমরাও থাকবো।
  যিনি রাজার মতো ফিরে আসার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন; তিনি স্বর্গর সত্য জানেন!

ডিগ্রি নয়! টাকা নয়! ত্যাগ নয়! কোনও ব্যথা না ! স্বর্গে যাবার জন্য কোন কিছুর   দরকার নেই কারণ বিশ্বাস ও অনুগ্রহের মাধ্যমেই কেবলমাত্র আমরা মুক্তি পেতে পারি।

যিশু

हमसे chat करें

To Top